চরম প্রতিযোগিতাপূর্ণ চাকরির বাজারে মৌখিক পরীক্ষার ডাক পাওয়াটাই যেন ভাগ্যের ব্যাপার| আর সেই ডাক পাওয়ার পরেও, এবং যথেষ্ট যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও, শুধুমাত্র অনাকাঙ্ঘিত কিছু ভুলের জন্য যদি হাত ছাড়া হয়ে যায় চাকরির সুযোগ তবে এর চাইতে দুঃখের আর কি হতে পারে| অনেক যোগ্যতা সম্পন্ন চাকরিপ্রার্থীও অনেক সময় অজ্ঞতা, অসচেতনতা অথবা অসাবধানতাবশত করে বসা কিছু ভুলের কারণে চাকরিতে নিয়োগপ্রাপ্তির সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়| আসুন জেনে নেয়া যাক হর হামেশাই ঘটে যাওয়া সেই ভুলগুলোর সম্পর্কে| সাথে থাকছে কিভাবে সেই ভুলগুলো এড়িয়ে চলা যায় তার উপায়|

 

. উদাসীনতা বা আগ্রহের অভাব

নিয়োগকর্তারা সবচেয়ে অপছন্দ করেন সেইসকল আবেদনকারীদের যারা চাকরির ব্যাপারে জ্ঞাত বা অজ্ঞাতভাবে উদাসীনতা প্রদর্শন করেন| নিয়োগকর্তারা সবসময় এমন সব আবেদনকারীদের খুঁজে নিতে চান যাদের চাকরি পাবার যোগ্যতা তো আছেই, সাথে আছে নিয়োগকারী প্রতিষ্ঠানটির একটি অংশ হবার অকৃত্রিম আগ্রহ| তাই, ভাইভা বোর্ডে যতটা সম্ভব চেষ্টা করুন প্রতিষ্ঠানটিতে যোগদান করার, নিজের ক্যারিয়ার গড়ে তোলার আগ্রহ প্রদর্শন করার| যে কোনো জায়গায় পোস্টিং হলেও কাজ করবেন কিনা – এই ধরণের প্রশ্নের উত্তরে সোজাসাপ্টা “হ্যা” উত্তর দিন, এমনকি যদি একটি নির্দিষ্ট জায়গা বাদে অন্য কোথাও পোস্টিং হলে আপনার চাকরিতে যোগদানে আপত্তি থেকে থাকে| বেশিরভাগ সময়েই এধরণের প্রশ্ন করার উদ্দেশ্য থাকে চাকরিপ্রার্থীদের আগ্রহ যাচাই করা|

 

. সাধারণ প্রস্তুতির অভাব

সাধারণ কিছু প্রস্তুতির অভাবেও সাধের চাকরিটা হাত ছাড়া হতে পারে| আপনি হয়তো ভাবতে পারেন যে, একজন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার অথবা লেখক পদের প্রার্থীর হয়তো ফর্মাল, বিজনেস-স্ট্যান্ডার্ড পোশাক পরে মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ না করলেও চলে| পোশাকের সাথে পেশাগত দক্ষতার কি সম্পর্ক? এমন যদি ভেবে থাকেন, আপনি ভুল ভাবছেন| নিয়োগকর্তারা কিন্তু যথাযথ পোশাক না পড়াকে আপনার উদাসীনতার পরিচায়ক ভেবে বসতেই পারেন| তাই, পরিপাটি হয়ে, সঠিক সময়ে ভাইভা দিতে পৌঁছে যান| ভাইভা রুমে ঢোকার আগে অবশ্যই আপনার মুঠোফোনটি বন্ধ করে রাখুন| যেই প্রতিষ্ঠানের যেই পদের জন্য ভাইভা দিতে যাচ্ছেন, সেই প্রতিষ্ঠান এবং পদ সম্পর্কে যতটা সম্ভব জেনে নিয়ে তারপরেই ভাইভা দিতে যান|

 

 

. কোনো প্রশ্ন না করা

আরেকটি সচরাচর করে থাকা ভুল হল, মৌখিক পরীক্ষায় প্রশ্ন করার সুযোগ পেয়েও কোনো প্রশ্ন না করা| সাধারণত, আজকালকার বেশিরভাগ মৌখিক পরীক্ষায় প্রার্থীদেরকে জিজ্ঞাসা করা হয় তাদের কোনো প্রশ্ন আছে কিনা| এই সুযোগ পেলে কোনো ভাবেই হাতছাড়া করবেন না| আপনি যে প্রশ্নগুলি জিজ্ঞাসা করেন তা প্রায়ই আপনার মতামত এবং আপনার কাছে কী গুরুত্বপূর্ণ তা প্রকাশ করে। এটি প্রমাণ করে যে, আপনি কাজটি সম্পর্কে আরো জানতে চান। তাই, সুযোগ পেলেই প্রশ্ন করুন| প্রশ্নগুলো অবশ্যই হতে হবে প্রতিষ্ঠান অথবা যে পদে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে সেই পদ সংশ্লিষ্ট| তবে, খেয়াল রাখবেন আপনার প্রশ্নগুলো যেন বুদ্ধিদীপ্ত হয়| এমন কোনো প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করবেন না যা খুব সহজেই Google অনুসন্ধানের মাধ্যমে অথবা প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটের হোমপেজে খুঁজে পাওয়া যেতে পারে|

 

. আত্মকেন্দ্রিকতা

বর্তমান চাকরিতে আপনার সাফল্য এবং দায়িত্ব নিয়ে আলোচনা করার সময় “আমি” শব্দটি যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন| কেননা, “আমি” শব্দটির পরিবর্তে “আমরা” শব্দটির ব্যবহার আরো বেশি চিত্তাকর্ষক। এর মানে এমন নয় যে আপনি নিজেকে ক্রেডিট দিচ্ছেন না, তবে আপনি একটি দলের অংশ হিসাবে নিজেকে ক্রেডিট দিচ্ছেন, যা আপনার নিয়োগকর্তার জন্য একটি বিশাল উদ্দীপক, কারণ এতে প্রমাণ হয় যে আপনি দলগত ভাবেও কাজে ভালো করতে পারবেন|

 

. নেতিবাচকতা

আপনি যদি অভিজ্ঞ চাকরিপ্রার্থী হন, তাহলে নিশ্চিত থাকতে পারেন আপনাকে একটি প্রশ্ন অবশ্যই করা হবে – “আপনি কেন বর্তমান চাকরিটা ছেড়ে দিতে চান?” এই প্রশ্নটির উত্তর ভিন্নভাবেই দেয়া যেতে পারে, কেননা বিভিন্ন কারণে একজন ব্যক্তি চাকরি পরিবর্তন করতে চাইতে পারেন| তবে, সতর্ক থাকা প্রয়োজন যে, এই প্রশ্নের উত্তরে না আবার আপনি নেতিবাচক মনোভাবের প্রকাশ ঘটান| আপনি আপনার কাজ, ঊর্ধতন কর্মকর্তা অথবা সহকর্মীদের পছন্দ করেন না – এমন উত্তর দিয়েছেন তো চাকরিটা অধরাই থেকে যাবে| এর পরিবর্তে, কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করুন; জানান যে, আপনি আপনার বর্তমান চাকরি থেকে কি কি অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন এবং সেই অভিজ্ঞতাকে ভিন্ন একটি প্রতিষ্ঠানের জন্য কাজে লাগাতে ও সেই ভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে আরো অভিজ্ঞতা অর্জন করার জন্য আপনি এখন চাকরি পরিবর্তন করতে প্রস্তুত।

 

সাক্ষাত্কারের সময় হাজারো প্রার্থীর ভিড় থেকে নিজেকে পৃথক করতে এবং নিজের কাজের দক্ষতাকে কতটা ভালভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারবেন তার উপরেই নির্ভর করবে আপনি চাকরিটা পাবেন কিনা। অতএব, মৌখিক পরীক্ষাতে সাধারণ এই ভুলগুলোকে এড়িয়ে চলে, নিজেকে একজন বুদ্ধিমান, পেশাদার, এবং আগ্রহী প্রার্থী হিসেবে প্রমাণ করতে পারা অতীব গুরুত্বপূর্ণ।

 

সুত্র: 

https://www.job-hunt.org/job_interviews/avoid-interview-mistakes.shtml

https://www.cnbc.com/2017/04/03/the-most-common-interview-mistakes-job-candidates-make.html

http://www.thegrindstone.com/2015/10/23/career-management/hiring/4-job-interview-mistakes-youre-probably-making/

https://www.forbes.com/sites/ashleystahl/2018/01/16/5-interview-mistakes-youre-probably-making/#6ec123dc4482