বর্তমানে মেয়েদেরকে অনেক সময় একা চলতে হয়। অফিস, স্কুল কলেজ কিংবা ঘরের কাজেই মেয়েদের বাহিরে যেতে হয়। আর সবসময় মেয়েদের এই বাহিরে যাওয়াটা খুব সুখকর হয়ে উঠেনা। ইদানিং আমরা প্রায় পত্রিকা বা সামাজিক মাধ্যমে মেয়েদের নিপীড়নের ঘটনা দেখছি। বাস, অফিস, রাস্তাঘাট এমনকি ঘরের মধ্যেও মেয়েরা আজ নিরাপদ নয়। কাছের বিশ্বাসযোগ্য মানুষগুলোই পশুরুপ ধারন করে। এর অন্যতম কারন হল মেয়েদের তারা দুর্বল ভাবে। আর সামাজিক এবং নৈতিক অবক্ষয় তো আছেই। আমরা এজন্য এই বিশেষ লেখাটি তৈরি করেছি যেন আমাদের প্রতিটি প্রিয় মানুষগুলো নিরাপদ থাকে। আর কোন বাজে দুর্ঘটনা যেন না ঘটে। তারা যেন নিরাপদে ঘরে ফিরতে পারে। নিচের পয়েন্টগুলো চেষ্টা করুন মানতে যেকোনো বিপদের সময়। আশা করি অনেক মেয়ে বেঁচে যাবে বড় কোন অঘটন থেকে।

১। মানসিকভাবে তৈরি থাকুনঃ ঘর থেকে বের হওয়ার সময় বা ঘরের মধ্যে যদি কোন এমন লোক থাকে তবে সবসময় মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকুন। আপনি যদি বাসে চড়েন কিংবা অফিস ক্লাসে যান তবে সতর্ক থাকুন। আর ঘরের মধ্যে বা আশে পাশে যদি আপনাকে এমন কারো সাথে থাকতে হয় যার দ্বারা ক্ষতি হবার ভয় আছে ( হতে পারে কেউ আপনার বাসায় এসেছে বা আপনার আশে পাশে থাকে যাকে দেখে আপনার মনে সন্দেহ ঢুকে) তবে আপনি আগেই প্রস্তুতি নিন। প্রস্তুতি মানে আপনাকে মানসিকভাবে শক্ত হতে হবে। এবং এরকম পরিস্থিতিতে কি করা উচিত তা ভাবতে হবে।

২। পরিকল্পনা করুনঃ আপনার সাথে অনেক কিছু হতে পারে এই ভেবে পরিকল্পনা করুন। বাসে বা যানবাহনে একাকি সফর করলে দয়া করে খুব সতর্ক থাকবেন। না ঘুমানোর চেষ্টা করবেন। মহিলা আছে এমন যানবাহনে উঠবেন। আর সন্দেহমুলক কিছু দেখলেই নেমে যাবেন। ব্যাগে অবশ্যই এমন কিছু রাখবেন যা এমন পরিস্থিতিতে কাজে দিবে। যেমন পেপার স্প্রে, ছোট পেপার কাটার, ছুরি এমন কিছু। বর্তমানে অনেক জায়গাতেই মেয়েদের জন্য বিভিন্ন আত্মরক্ষামূলক প্রশিক্ষন দেওয়া হয়। খুব ভাল হয় যদি এমন কিছুতে আপনি অংশ নিতে পারেন।

৩। ষষ্ঠ ইন্দ্রিয়কে অনুসরন করুনঃ আমরা অনেক বড় বিপদ অনেক সময় এড়াতে পারি যদি আমরা আমাদের ষষ্ঠ ইন্দ্রিয়কে কাজে লাগাই। আমরা অনেকেই এই ভুলটা করে থাকি। আমাদের ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় কিন্তু ঠিকই আমাদের সতর্ক করে অনেক সময়। কিন্তু আমরা হেলা ফেলা করে সেটা আমল দেইনা। মনে রাখবেন সৃষ্টিকর্তা কিন্তু আমাদের কিছু মানবীয় গুণাবলী দিয়েছেন। যার মধ্যে এই ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় একটি। আপনি কিছু খেয়াল না করলেও আপনার ইন্দ্রিয় ঠিক খেয়াল করে এবং আপনাকে ঠিক সিগনাল দেয়। তাই যখনই মনে সামান্য পরিমান হলেও আপনার কিছু মনে হবে সেটাকে আমলে দিবেন এবং সতর্ক হবেন।

৪। চারপাশে খেয়াল করুনঃ আমরা অনেক মেয়েদের দেখি খুব আনমনে থাকে। সেটা একদম ঠিক না। খুব ভাল করে চারপাশ খেয়াল করে চলুন। কোন বাস অথবা যানে উঠছেন তা দেখুন। সম্ভব হলে নাম্বার টুকে নিন। রাস্তায় হাঁটার সময় দেখুন কেউ আপনাকে অনুসরন করছে কিনা। কারো থেকে অন্যরকম আচরন পেলেই সতর্ক হন। কেউ অনুসরন করছে মনে হলে ভুল বাসায় ঢুকে পড়ুন। একা গাড়িতে বা ট্যাক্সিতে চরলে ড্রাইভারকে শুনিয়ে গাড়ির নাম্বার এবং আপনার অবস্থান জানিয়ে দিন।

৫। ভয় পাবেন নাঃ এরপরও যদি আপনি বিপদের সম্মুখিন হন ভয় পাবেন না। এবং আপনার প্রতিপক্ষকে বুঝতে দিবেন না আপনি ভয় পেয়েছেন। আত্মবিশ্বাসের সাথে আপনি পদক্ষেপ নিন। পেপার স্প্রে চোখে লাগিয়ে দিন। তাকে আঘাত করুন। এবং জোরে চিৎকার করুন। আওয়াজ করুন যত পারুন। আর ঘরের মধ্যে আঘাত করতে আসলে রান্নাঘরে চলে যান। মরিচ গুঁড়ো, ছুরি, বটি যা পাবেন তা দিয়ে আত্মরক্ষা করুন। এখন ইউটিউব, ইন্টারনেটে আপনি আত্তরক্ষার অনেক কৌশল পাবেন। ওগুলা দেখুন এবং জেনে রাখুন।

৬। জিনিসের প্রতি মায়া করবেন নাঃ যদি আপনাকে বিপদে পড়ে কোন জিনিস খোয়াতে হয় তবে তাই করুন। কারন অনেক সময় কোন কিছু বাঁচাতে গিয়ে আরও বড় বিপদে পড়তে হয়। ছিনতাইকারি কিছু চাইলে দিয়ে দিবেন। কারন আপনার জীবনের মূল্য বেশি টাকা কিংবা অন্যান্য কিছু থেকে।

আমাদের চাওয়া কোন মেয়ে যেন আর বিপদে না পড়ে। ঘরের পরিবেশও যেন সব মেয়েদের জন্য নিরাপদ থাকে। তবে শেষ কথা হল নিয়মিত ব্যায়াম করে নিজেকে ফিট রাখুন। যেন বিপদে আপনার শরীর সেই ভার নিতে পারে।

তথ্যসূত্রঃ http://roogirl.com/14-self-defense-tips-every-woman-should-know/

https://www.thelist.com/58565/basic-self-defense-tips-every-woman-know/