ছোটবেলায় যখন আমরা প্রথম প্রথম লেখা শুরু করি বেশিরভাগ শিশুই ডান হাতে লিখা শুরু করি। এবং এটাকে আমরা স্বাভাবিক বলে মেনে নেই। আমাদের সব কাজ আমরা ডান হাতে করে থাকি। কিন্তু কিছু মানুষ আছে যারা সব কাজ বাম হাতে করে। কারন তাদের মস্তিষ্ক তাদের বাম দিককে বেশি সচল করে। এদের আমরা বাঁহাতি বা লেফট হ্যান্ডেড বলে জানি। এই বাঁহাতিদের বেশ মজার ব্যাপার আজকে আমরা জানব।

১। পৃথিবীর ১০% জনসংখ্যা হল বাঁহাতিঃ মাত্র ১০% মানুষ বা হাতে কাজ করে। এত কম হওয়ার পেছনে অন্যতম একটি কারন হল সামাজিক এবং প্রাতিষ্ঠানিক চাপ। অনেক সমাজেই বাঁহাতিদের ভালভাবে নেওয়া হয়না। তাই অনেকেই বাঁহাতি হওয়া সত্ত্বেও এসব চাপে ডান হাতে কাজ করা শিখে নেয়। যদিও এতে তাদের উপর অনেক চাপ পরে যায়।

২। মৃত্যুহারঃ দুঃখজনক হলেও প্রতি বছর প্রায় ২৫০০ জন বাঁহাতি মানুষ মারা যায় এমন যন্ত্রপাতির ব্যাবহারের কারনে যেগুলো ডানহাতিদের জন্য তৈরি করা হয়। এছাড়া প্রায় ১০.৩% লোক আহত হয় গাড়ি চালাতে যেয়ে।

৩। অকালে জন্ম নেওয়া শিশুরা বেশি বাঁহাতি হয়ঃ এক গবেষণায় দেখা গেছে অকালে জন্ম নেওয়া শিশুদের মধ্যে বাঁহাতি হওয়ার প্রবনতা বেশি। ৫৪% এর বেশি শিশু বাঁহাতি হয় যারা অকালে জন্ম নেয়। এর কারন হিসেবে ধরা হয় হয়ত অকালে জন্ম নেওয়াতে শিশুদের মস্তিষ্ক সম্পূর্ণ গঠন হয়না। অথবা জম্নের সময় কিছুটা মস্তিষ্কে আঘাত পাওয়ার জন্য।

৪। সিজোফ্রেনিয়া রোগীঃ ৪০% এর বেশি সিজোফ্রেনিয়া রোগীরা হল বাঁহাতি। ডক্টর জডন ওয়েব ,এম ডী, পি এইচ ডী এবং ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়য়ের একজন ফেলো পরীক্ষা করে দেখেন সিজোফ্রেনিয়াতে আক্রান্ত রোগীর প্রায় ৪০%ই বাঁহাতি।

৫। বাঁহাতিরা খেলাধুলায় ভালঃ গবেষণায় দেখা গেছে কম্পিউটার গেমস কিংবা সাধারণ খেলাধুলায় বাঁহাতিরা ডানহাতিদের তুলনায় দ্রুত খেলতে পারে। এবং তাঁরা ভাল খেলে। তাঁরা বিশেষ সুবিধা পায় তাঁদের বিপরীত খেলোয়াড় থেকে। অনেক ভাল ভাল খেলোয়াড়রা বাঁহাতি।

৬। যমজদের মধ্যে প্রবণতা বেশিঃ দেখা যায় যমজদের মধ্যে বাঁহাতি হওয়ার প্রবনতা বেশি। ২১% এর বেশি জমজ বাঁহাতি হয়।

৭। বাঁহাতিরা বেশি ভয় পানঃ ডক্টর ক্যারোলিন চৌধুরী একটি রিসার্চ করেন কুইন মারগারেট বিশ্ববিদ্যালয়ে। তিনি একটি ভয়ের ছবির কিছু অংশ কিছু মানুষদের দেখান। এবং এরপর তিনি লক্ষ্য করেন বাঁহাতিরা বেশি ভয় পায় ডানহাতিদের তুলনায়। এর কারন হতে পারে বাঁহাতিদের মস্তিকের ডান অংশ বেশি কাজ করে। আর ডান অংশই ভয় তৈরি করতে সাহায্য করে।

৮। বাঁহাতিরা বেশি রগচটা হয়ঃ মেরিমেক কলেজের মনোবিজ্ঞানের অধ্যাপক রুথ প্রপার গবেষণায় জানান বাঁহাতি লোকেরা ডানহাতি লোকদের তুলনায় বেশি রগচটা এবং রাগি হয়। এর কারন হিসেবে দেখান হয় তাঁদের মস্তিস্কের দুই অংশের মধ্যে যে যোগাযোগ তৈরি হয় তার ফলে তাদের মধ্যে এসব আবেগ বেশি তৈরি হয়।

৯। অগাস্ট ১৩ হল বিশ্ব বাঁহাতি দিবসঃ ১৯৯৬ সাল থেকে ১৩ অগাস্টকে বিশ্ব বাঁহাতি দিবস হিসেবে পালন করা হয়ে থাকে। বাঁহাতিদের নিয়ে বিভিন্ন সচেতনতা তৈরি করতে এই দিবস পালন করা হয়।

১০। বাঁহাতিরা কম টাকা আয় করেঃ হার্ভার্ড কেনেডি স্কুল এর অর্থনীতিবিদ জসুয়া গুডমেন তাঁর গবেষণায় দেখান বাঁহাতি লোকেরা তাঁদের আবেগ এবং ব্যাবহারজনিত সমস্যায় এবং বিভিন্ন কারনে ডানহাতিদের তুলনায় কম টাকা আয় করেন।

১১। বাঁহাতিরা বেশি সৃজনশীল নয়ঃ আগে মানুষ ভাবত ডানহাতিদের তুলনায় বাঁহাতিরা বেশি সৃজনশীল। কিন্তু বর্তমানে দেখা গেছে এরকম কিছু নেই। বরং তাদের ক্ষমতা ধীরে ধীরে কমে যায়। তাদের মধ্যে একসাথে কাজ করার ক্ষমতা কম।

বিশ্বের অনেক প্রভাবশালী এবং বিখ্যাত লোক রয়েছে যারা বাঁহাতি। যেমন বারাক ওবামা, বিল গেট্‌স, লিওনার্দো দা ভিঞ্চি, নেপোলিয়ন, এইচ জি ওয়েলস, বিল ক্লিনটন এঁরা সবাই বাঁহাতি।

 

তথ্যসূত্রঃ

http://edition.cnn.com/2015/11/03/health/being-left-handed-health-impact/index.html

http://www.indiana.edu/~primate/left.html

https://factsc.com/facts-about-left-handed-people/