প্রথম পেশাদার চাকরীতে যোগদান করাটা বর্তমান প্রতিযোগিতাপূর্ণ পৃথিবীতে নিজের প্রথম পদচারণা। নিয়মিত কর্মঘণ্টা, সর্বদা নিজেকে উপস্থাপনযোগ্য রাখা, দুপুরের ঘুম থেকে বিরত থাকা সহ দৈনন্দিন বিভিন্ন অভ্যাসে পরিবর্তন আনা সবসময়ই কঠিন তবে নিজেকে এ চ্যালেঞ্জ এর সাথে মানিয়ে নেয়া সম্ভব আর তা কেবল কয়েকটি পদক্ষেপ বাস্তবায়নের মাধ্যমেই সম্ভব। জীবনযাপনের ধরন পরিবর্তনের পাশাপাশি কিছু বিষয় সামনে চলে আসে যেমন- কর্মক্ষেত্রে করণীয়, সহকর্মীদের সাথে সহযোগীতা, কর্মক্ষেত্রে নিজেকে উপস্থাপন করতে পোশাক এর যথার্থতা, অন্যকে বিরক্ত না করে ঠিক কতটুকু প্রশ্ন করা যায় এসব ব্যাপারসহ আরো খুঁটিনাটি অনেক বিষয়। বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী থেকে কর্মী জীবনে রুপান্তর আসলে ততটা কঠিন নয় যতটা মনে হয় অথবা লোকমুখে শোনা যায়। কিছু বিভ্রান্তিকর প্রশ্নের উত্তর দেয়ার পাশাপাশি এ বিষয়ে নিচে পরিপূর্ণ আলোচনা করা হল যা আপনার স্নায়ু ঠান্ডা রাখার পাশাপাশি যোগাবে বাড়তি আত্মবিশ্বাস। কর্মক্ষেত্রে করণীয় বিষয়:

১) সহকর্মীকে সম্মান করুন:

কর্মক্ষেত্রে বন্ধু তৈরি করাটা বেশ গুরুত্বপূর্ণ যা কাজের মধ্যে নিয়ে আসে বন্ধুভাবাপন্ন পরিবেশ অ নতুন পরিবেশের সাথে মানিয়ে নিতে সহায়ক। তবে এর সম্পুর্ণটাই যেন হয় তাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনপূর্বক। নম্র ব্যবহার ও ব্যাক্তিত্বের সঠিক বহিঃপ্রকাশের মাধ্যমে তাদের কাছ থেকেও অনুরুপ সম্মান বন্ধুভাবাপন্ন পরিবেশের সহায়ক।

২) বেশি গল্প নয়:

কাজের পরিবেশ চ্যালেঞ্জিং হতে পারে কিন্তু স্কুলজীবনের বাকপটুতা পুনরায় ফিরে পাওয়ার লোভ থেকে নিজেকে বিরত রাখুন। কাজের সময় অন্যকে নিজের বাকপটুতায় মুগ্ধ করার ব্যাপারটি হিতে বিপরীত ও হতে পারে। যা অনেক সময় অনেকের কাছে আপনার গ্রহণযোগ্যতা ও সম্মান এর সাথে আপোসযোগ্য হয়ে যায়। বিশ্বাসযোগ্যতায় ঘাটতি ফেলে ও অনেক একান্ত কাজ থেকে বঞ্চিত হওয়া লাগে।

৩) বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করুন:

কাজের প্রতি নিজের আগ্রহ প্রকাশ ও কাজে সফলতার মাধ্যমে শেষ করে অন্যের কাছে নিজের গ্রহণযোগ্যতা ও আস্থা বাড়ানো যায়। সহকর্মীদের সহায়তায় সবসময় এক কদম এগিয়ে থাকুন। সহকর্মীদের সহায়তায় যেকোনো সময় সাড়া দেওয়ার মাধ্যমে কেবল তাদের কাছেই নয়, বসের কাছেও আপনার গ্রহণযোগ্যতা ও নির্ভরতার পাশাপাশি বিশ্বাসযোগ্যতাও বাড়ায়।

৪) বসের সাথে সম্পর্ক স্থাপন:

সিনিয়রদের ও বস এর উপস্থিতিতে কথা বলুন, নিজের আত্মবিশ্বাস যেন তাদের চোখে পড়ে, তাদের উপর নিজের একটি মুগ্ধতা তৈরি করুন ও ছাপ রাখুন তাদের আস্থা অর্জনে। যেকোনো মিটিং এ ইতিবাচক অবদান রাখার চেষ্টা করুন। অন্যথায় অকারণ সময় নষ্ট করে অন্যের বিরক্তি সৃষ্টি করা যাবে না। ভালো কাজের মাধ্যমে বসের সাথে ভালো সম্পর্ক স্থাপন করার মাধ্যমে নিজের আলাদা গুরুত্ব তৈরী করুন।

৫) দলগত অবদান রাখুন:

যেকোনো দলগত প্রজেক্ট বা অ্যাসাইনমেন্ট এ নিজের ভূমিকা পরিপূর্ণভাবে পালন করুন এবং যদি সম্ভব হয় তবে সহকর্মীদের বা দলের অন্যান্য সদস্যদেরকে তাদের ভূমিকা রাখায় সহায়তা করুন।

৬) দাম্ভিকতাকে আড়াল ও নম্রতাকে প্রকাশ করা:

কখনোই অন্যের সামনে নিজের অতীতের গৌরব নিজ থেকে যেচে বলতে যাবেন না। কেননা তা আপনার দাম্ভিকতাকে ফুটিয়ে তুলবে যদিও আপনি দাম্ভিক নন তবুও। বরং আপনার আশপাশের লোকদেরকে নিজ থেকে আপনার সম্পর্কে জানতে দিন যেচে বলা বাদ দিয়ে।

৭) নিজের উপর প্রত্যাশাটা জানুন ও পূরণ করুন:

চাকরির শুরুতে আপনার থেকে আপনার প্রতিষ্ঠান যে ধরনের আশা করে তার একটি রুপরেখা দেয়া হয়ে থাকে। এ রুপরেখা পূরণ করুন এবং ভূমিকা অবলোকন করুন। আপনার বস ও সহকর্মীরা কি আশা করে তা বুঝুন এবং সেগুলো পূরণ করার চেষ্টা করুন।

৮) প্রশ্ন করতে দ্বিধা করবেন না:

তেমন একটা সহায়তা না নিয়ে নিজ থেকে নিজের টাস্ক শেষ করাটা আপনার স্বাধীন কর্মীসত্তার বহিঃপ্রকাশ করে। তবে চাকরীর প্রথমদিকে এমনটা হবার কোনো প্রয়োজন নেই। সংশয় থাকলে সহকর্মীদের সহায়তা নিতে পিছপা হবেন না এবং সংশয় রাখবেন না।

৯) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সতর্কতা:

বর্তমানে ফেসবুক একাউন্ট আধুনিক সি.ভি বা জীবন বৃত্তান্ত। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপনার উপস্থিতি অ মতবাদ আসলে আপনার ব্যাক্তিত্বের বহিঃপ্রকাশ। সুতরাং, সহকর্মী ও একান্ত বন্ধুদের জন্য পৃথক কিন্তু নিরাপদ ও পজিটিভ উপস্থিতি বাড়ানোই ভালো।

১০) পোশাকে মার্জনীয়তা:

প্রতিটি প্রতিষ্ঠানেরই নিজস্ব আনুষ্ঠানিক ড্রেসকোড আছে। তবে সাধারণ অফিস, মিটিং, পার্টি বা উপলক্ষভেদে আপনার ড্রেসকোড আসলে আপনার রুচি ও ব্যাক্তিত্ববোধ ফুটিয়ে তোলে। তাই, এ বিষয়গুলির প্রতি একটু যত্নশীল হওয়া শ্রেয়।

১১) অভিযোগ করা থেকে বিরত থাকুন:

অনেক সময় আপনার সহকর্মীর কোনো কাজ বা অফিসের কোনো একটা পরিবেশ আপনার বিপক্ষে যেতে পারে। এসময় অভিযোগ করা থেকে বিরত থাওলে ও সহিষ্ণুতার পরিচয় দিলে পরবর্তীতে বিরুদ্ধ পরিবেশে পড়ার সম্ভাবনা থাকে না। পক্ষান্তরে অভিযোগ করার মাধ্যমে সহকর্মীর সাথে সম্পর্কে চির ধরে।

 

Source :

https://www.savethestudent.org/student-jobs/how-to-act-in-your-first-graduate-job.html